ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ  শুক্রবার ● ২৮ জানুয়ারি ২০২২ ● ১৫ মাঘ ১৪২৮
ই-পেপার  শুক্রবার ● ২৮ জানুয়ারি ২০২২
শিরোনাম: রাত পোহালেই শিল্পী সমিতির নির্বাচন       লবিস্ট নিয়োগের ব্যাখ্যা বিএনপিকে দিতে হবে: প্রধানমন্ত্রী       ভূমি অধিগ্রহণ নিয়ে উত্থাপিত অভিযোগ ​ভিত্তিহীন : দীপু মনি       পত্রিকা খুললেই পরীমনি-খুকুমণি আর দীপু মনি       মাহবুব তালুকদারসহ ইসির প্রায় ২০ জন করোনায় আক্রান্ত       সবচেয়ে দূষিত শহর ঢাকা        ৬ মাস টি-টোয়েন্টি খেলবেন না তামিম      
হাসপাতালে শুয়েও ‘আপা’র কথা বলছেন ফারুক, জানালেন স্ত্রী
আহমেদ তেপান্তর
Published : Friday, 14 January, 2022 at 7:04 PM

সস্ত্রীক অভিনেতা ফারুক

সস্ত্রীক অভিনেতা ফারুক

‘তিনি অসুস্থ থাকলেও তার মন পড়ে রয়েছে দেশের মাটিতে। হাসপাতালে শুয়েও তিনি বার বার আপা’র (প্রধানমন্ত্রী) কথা বলে যাচ্ছেন। তিনি কেমন আছেন। সুস্থ আছেন কি না ইত্যাদি...’- সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন অভিনেতা ও সংসদ সদস্য আকবর হোসেন পাঠান ফারুকের স্ত্রী ফারহানা ফারুক এমনটাই জানালেন। 

আজ শুক্রবার বিকালে আজকালের খবরের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হলে হোয়াটসঅ্যাপে বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে ফারুকের স্ত্রী জানান- আলহামদুলিল্লাহ আপনাদের মিয়াভাইয়ের শারীরিক অবস্থা ধীরে ধীরে উন্নত হচ্ছে। যে কারণে পাঁচ মাস আগে কেবিনে স্থানান্তর করা হয়েছে। রক্তচাপ ও মস্তিস্কে সমস্যাও এখন অনেকটা নিয়ন্ত্রণে। এখন তিনি পছন্দ মতো খাবার গ্রহণ করতে পারছেন। তবে চিকিৎসক জানিয়েছেন তার নার্ভে ইনফেকশন আছে যে কারণে আরো কিছুদিন চিকিৎসা চালিয়ে যেতে হবে। এই ব্যাপারটা হুট করেই সেরে যাবে না, ধীরে ধীরে উন্নত হবে।

একটু আধটু হাঁটা চলাচল করতে পারছেন উল্লেখ করে ফারহানা বলেন, তিনি এখন কথাবার্তা বলতে পারছেন আগের মতোই। নামাজ পড়ছেন। পরিচিতজনদের কথা জানতে চাইছেন। বিশেষ করে আইসিইউতে থাকাকালীনও বঙ্গবন্ধুর স্নেহের কথা কয়েকবার আমাকে বলেছেন। আর আপা (শেখ হাসিনা) বলতেই তিনি এখনো অজ্ঞান। সবসময় প্রধানমন্ত্রীর নাম লেগেই আছে তার মুখে। তার কথা একটাই আপা থাকতে তিনি অন্যকিছু নিয়ে ভাবেন না। তবে আপার উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে সহযাত্রী হতে পারছেন না এটা ভেবেই কষ্ট পান প্রায়ই। 

১০ মাসের অধিক সময় ধরে সিঙ্গাপুরের মতো জায়গায় চিকিৎসা গ্রহণ করছেন, ব্যয়ভার কিভাবে মেটাচ্ছেন এমন প্রশ্নের জবাবে ফারুকের স্ত্রী বলেন, যখন অবস্থা বেগতিক তখন তাৎক্ষণিক ফ্ল্যাট বিক্রি করতে পারছিলাম না। ওই সময় প্রধানমন্ত্রী তার সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে বিরাট উপকার করেছেন। তা না হলে সিঙ্গাপুরে এসে চিকিৎসা নেওয়া কঠিন হতো। এখন যে নার্ভের ইনফেকশন ধরা পড়েছে সেটা দীর্ঘমেয়াদী চিকিসা করাতে হবে। চিকিৎসক বলেছেন ব্যয়বহুল, তবু করাতে হবে নইলে অন্যান্য উপসর্গ ধরা পড়বে। এতে জটিলতা বাড়বে।

ফারহানা বলেন, ছেলে-মেয়ের পড়াশোনা শেষ ওরা এখন ঢাকায় অবস্থান করছে। ছেলে শরৎ সম্পত্তি বিক্রি করে টাকা পাঠাচ্ছে। এসব করতে দুটো ফ্ল্যাট বিক্রি করতে হয়েছে। আসলে এ অবস্থায় সম্পত্তির কথা নয় আমরা সম্মিলিতভাবে চাই আপনাদের মিয়াভাইয়ের সুস্থতা। শুধু ফারুক সুস্থ হয়ে ফিরে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসুক। আমি মনে করি একজন মিয়াভাই আপনাদের সম্পদ। তার রোগমুক্তির জন্য সবার কাছে দোয়া চাই। আমরা এক সঙ্গে দেশে ফিরতে চাই।

ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির সহকর্মীরা যোগাযোগ করছে কিনা জানতে চাইলে ফারহানা ফারুক বলেন, জায়েদ খান, জয় চৌধুরী ওরা নিয়মিত যোগাযোগ করে। আলমগীর ভাইও যোগাযোগ করেন। হয়তো এর বাইরে ফারুকের নম্বরে অনেকেই যোগাযোগ করছেন কিন্তু নম্বরটি আপাতত বন্ধ থাকায় অনেকেই পাচ্ছেন না।

রক্তে সংক্রমণজনিত জটিলতা নিয়ে প্রায় আট মাস ধরে হাসপাতালটিতে চিকিৎসা চলছে ৭৩ বছর বয়সী এ অভিনেতার। নিয়মিত চেকআপের জন্য চলতি বছরের মার্চের প্রথম সপ্তাহে সিঙ্গাপুর যান ফারুক। এরপর সংক্রমণ ধরা পড়ায় মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি। 

ফারুকের পুরো নাম আকবর হোসেন পাঠান দুলু। ফারুক নামে এইচ আকবর পরিচালিত ‘জলছবি’ চলচ্চিত্র দিয়ে অভিষেক হয় তার। ১৯৪৮ সালের ১৮ আগস্ট তিনি জন্মগ্রহণ করেন।

একসময়ে জনপ্রিয় এই চিত্রনায়ক ২০১৮ সালে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে ঢাকা-১৭ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে আট বছর ধরে চিকিৎসাসেবা নেন ফারুক। সর্বশেষ ২০২০ সালে অক্টোবর মাসের শেষদিকে চিকিৎসা শেষে সিঙ্গাপুর থেকে দেশে আসেন তিনি। এর কিছুদিন পর করোনায় আক্রান্ত হন। গত বছরের মার্চে নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য সিঙ্গাপুরে যান ফারুক। এরপর থেকেই অসুস্থতা অনুভব করছিলেন তিনি। চিকিৎসকের পরামর্শে দ্রুত হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। পরে তার মস্তিস্কে সংক্রমণ ধরা পড়ে। একই সময়ে চিকিৎসকরা জানান রক্তে দুটি সংক্রমণও রয়েছে। মার্চ মাসের তৃতীয় সপ্তাহ থেকে ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত একদম অচেতন ছিলেন তিনি। এক মাসের বেশি সময় ধরে কথা বলতে পারেননি ফারুক। এপ্রিলে তার অসুস্থতা আরও বাড়তে থাকে।

মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক চলচ্চিত্র ‘আবার তোরা মানুষ হ’, ‘সুজন সখী’, ‘লাঠিয়াল’, ‘জনতা এক্সপ্রেস’, ‘সাহেব’, ‘নয়নমনি’, ‘সুজন সখি’, ‘ঝিনুক মালা’, ‘গোলাপী এখন ট্রেনে’ তার উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্র। এর বাইরে ‘মিয়াভাই’ চলচ্চিত্র করে অভূতপূর্ব সাড়া ফেলেন। এরপর থেকে চলচ্চিত্রাঙ্গনে তিনি ‘মিয়াভাই’ নামে পরিচিতি লাভ করেন।

চলচ্চিত্রে পাঁচ দশকের ক্যারিয়ারের অবদান রাখার জন্য সরকার তাকে আজীবন সম্মাননা প্রদান করে।

আজকালের খবর/আতে



সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি : গোলাম মোস্তফা || সম্পাদক : ফারুক আহমেদ তালুকদার
সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : হাউস নং ৩৯ (৫ম তলা), রোড নং ১৭/এ, ব্লক: ই, বনানী, ঢাকা-১২১৩।
ফোন: +৮৮-০২-৪৮৮১১৮৩১-৪, বিজ্ঞাপন : ০১৭০৯৯৯৭৪৯৯, সার্কুলেশন : ০১৭০৯৯৯৭৪৯৮
ই-মেইল : বার্তা বিভাগ- [email protected] বিজ্ঞাপন- [email protected]
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক আজকালের খবর
Web : www.ajkalerkhobor.net, www.ajkalerkhobor.com