ই-পেপার ফটোগ্যালারি আর্কাইভ  মঙ্গলবার ● ২৭ জুলাই ২০২১ ● ১২ শ্রাবণ ১৪২৮
ই-পেপার  মঙ্গলবার ● ২৭ জুলাই ২০২১
শিরোনাম: সব মামলায় জামিনের মেয়াদ বাড়ল আরো এক মাস       কুষ্টিয়ায় ২৪ ঘণ্টায় আরো ১৯ জনের মৃত্যু       চট্টগ্রামে একদিনে মৃত্যু ও শনাক্তে নতুন রেকর্ড       অসুস্থ শ্বশুরের পাশে থাকতে আজই ফিরছেন লিটন দাস       লিবীয় উপকূলে নৌডুবি, ৫৭ অভিবাসীর মৃত্যুর আশঙ্কা       রামেক করোনা ওয়ার্ডে আরো ২১ জনের মৃত্যু       ময়মনসিংহ মেডিক্যালে আরো ১৯ জনের মৃত্যু      
যানজট কমাতে বিকল্প সড়কে যানচলাচল উন্মুক্ত করলেন গাসিক মেয়র
মাজহারুল ইসলাম, গাজীপুর
Published : Wednesday, 21 July, 2021 at 12:33 AM

ঈদকে সামনে রেখে  গাজীপুরে যানজট কমাতে টঙ্গী-সুকুন্দিবাগ বনমালা বিকল্প সড়কে যানবাহন চলাচল উন্মুক্ত করে দেন গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম। 

বিআরটি প্রকল্পের  কাজ চলমান থাকায় টঙ্গী থেকে গাজীপুর চৌরাস্তা পর্যন্ত ১২ কিলোমিটার ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে সৃষ্ট যাটজন কমাতে  টঙ্গী-সুকুন্দিবাগ বনমালা বিকল্প সড়ক নির্মাণ করা হয়েছে। এই মহাসড়কে গাজীপুরের মানুষ ও উত্তর বঙ্গের যাত্রীসাধারণের যানজটের সীমহীন দুর্ভোগ কমাতে গাসিক মেয়র জাহাঙ্গীর আলম টঙ্গী-সুকুন্দিবাগ বনমালা সড়ক নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করেছিলেন। মেয়রের নেতৃত্বে দীর্ঘ কয়েক মাসের মধ্যে এই বিকল্প সড়ক নির্মাণ করা হয়। 

সোমবার রাতে বিকল্প এই সড়কটি ঈদকে সামনে রেখে যানচলাচলে উন্মুক্ত করে দেন সিটি মেয়র জাহাঙ্গীর আলম। 

সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও বিশেজ্ঞরা মনে করেন- টঙ্গী-সুকুন্দিবাগ বনমালা সড়ক নির্মাণ করায় এবং  বিকল্প এই সড়ক ব্যবহারে টঙ্গী-গাজীপুর চৌরাস্তা পর্যন্ত  যানজটের চরম ভুগান্তি অনেকটা কমে আসবে। এতে লাখো যাত্রীসাধারণ তাদের সময় বাঁচিয়ে এই বিকল্প সড়ক ব্যবহারের মধ্য দিয়ে উপকৃত হবেন। 

স্থানীয় সাংবাদিক আব্দুর রহমান আজকালের খবরকে বলেন- আধুনিক নগর গড়ার সপ্নদ্রষ্টা যিনি ইতমধ্যে বিভিন্ন উন্নয়নমূলক মানবিক  কাজের মাধ্যমে গাজীপুর তথা  দেশের মানুষের মাঝে সাড়া জাগিয়েছেন। বিশেষ করে তার নেতৃত্বে গাজীপুর সিটিতে  ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। মহানগরে চলছে উন্নয়নের অগ্রযাত্রা। টঙ্গী- সুকুন্দিবাগবনমালা বিকল্প এই সড়কটি সিটি মেয়র দিনরাত পরিশ্রম করেছেন। বিকল্প এই রাস্তাটিতে নিজ হাতে ইট বিছিয়েছেন। সয়েল কম্পেক্টর রোলার চালিয়েছেন। এরকম প্রকৃত জনবান্ধব একজন অভিভাবক পেয়ে গাজীপুরবাসী গর্ববোধ করছেন।
 
গাসিক মেয়র জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ঈদের আগেই টঙ্গী বনমালা গাজীপুর হেডকোয়ার্টার বাইপাস সড়ক যানবাহন চলাচলে উম্মুক্ত করে দিয়ে কথা রেখেছি। গাজীপুর সিটিতে এমন আরো নির্মাণাধীন বহু সড়ক আগামী এক বছরের মধ্যে উম্মুক্ত করে জনগনের চাওয়া পাওয়া পূরণ করা হবে।

মেয়র জাহাঙ্গীর আলম আরো বলেন, টঙ্গী বনমালা গাজীপুর হেডকোয়ার্টার সড়কটি যানবাহন চলাচলের জন্য চালু করে দেওয়ায় টঙ্গী গাজীপুর মহাসড়কে যানবাহনের চাপ বহুলাংশে কমে আসবে। এ সড়কে গাজীপুরের ১০ লাখ মানুষ তাদের অভ্যান্তরীন যাতায়াতে সুবিধা ভোগ করবেন। ৫০ ফিট চওড়া করে রাস্তাটি নির্মাণ করা হয়েছে। সড়কের পূর্ব পাশে রয়েছে আলাদা ফুটপাত।

রাস্তার সৌন্দর্য বর্ধনে থাকবে নানা আয়োজন। পুরো রাস্তাটিকে সড়ক বাতিতে সজ্জিত করা হয়েছে। টঙ্গী বনমালা গাজীপুর হেডকোয়ার্টারের ১০ কিলোমিটারের বনমালা হায়দ্রাবাদ নয়া রাস্তাটি দেখতে উদ্বোধনের পর থেকে শত শত মানুষ ভীড় জমাচ্ছেন বনমালা হায়দ্রাবাদ সড়কে।
ঢাকা টঙ্গী গাজীপুর ময়মনসিংহ টাঙ্গাইল মহাসড়কে যানজট কমাতে সড়ক পথের এই রাস্তা চালুর বাস্তবায়নে নির্মাণ কাজে শ্রমিকদের উৎসাহ দিতে গাজীপুর সিটি মেয়র জাহাঙ্গীর আলম নিজেই গভীর রাতে রাস্তায় ইট বিছানোর সলিংয়ে নেমে পড়েছিলেন। ২৪ ঘন্টা কাজের সময় মেয়র কাউন্সিলরদের নির্ঘুম রাতও কাটে সড়কটি নির্মাণকালে। টঙ্গী জয়দেবপুর রেললাইন ঘেঁষা ৫০ ফিটের চওড়া টঙ্গী বনমালা গাজীপুরের এই সড়কটির নির্মাণ কাজ তিন মাস আগে শুরু করা হয়েছিল। 

মেয়র জাহাঙ্গীর আলম আরো বলেন, আলেচিত রাস্তাটি টঙ্গী চেরাগআলী কলেজগেট বনমালা হায়দ্রাবাদ রেলব্রীজ হয়ে সোজা গাজীপুর হেডকোয়ার্টারে গিয়ে মিলিত হয়েছে। পর্যায়ক্রমে এই রাস্তাটি রাজেন্দ্রপুরে গিয়ে ঢাকা ময়মনসিংহ মহসড়কে মিলিত হবে। অপরদিকে রাস্তাটি গাজীপুর টঙ্গী সিলেট এবং গাজীপুর বনমালা আমতলী হয়ে ঢাকা টঙ্গী কালীগঞ্জ সিলেট সড়কে মিলিত হবে। এছাড়া ঢাকা চট্টগ্রাম এবং ঢাকা ময়মনসিংহ রেললাইনের দুপাশ দিয়ে গাজীপুর সিটি এলাকায় ৬ লেন করে ১২ লেনের হাইওয়ে রাস্তা নির্মাণের একটি প্রকল্পও হাতে নেওয়া হয়েছে।

টঙ্গী নিমতলী গাজীপুর হেডকোয়ার্টার হয়ে অপর একটি বিকল্প রাস্তার কাজও এখন চলমান রয়েছ। এছাড়াও গাজীপুর সিটিতে প্রায় ৩০ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে ৭ শ কিলোমিটারের ২০,৩০,৪০,৫০ ও ৬০ ফুট চওড়া করে রাস্তার নির্মাণ কাজও এগিয়ে চলছে। আলোচিত টঙ্গী বনমালা গাজীপুর রাস্তাটি মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপি এবং যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল এমপির বাবা আহসান উল্লাহ মাস্টারের গ্রামের বাড়ির রাস্তা হয়ে গাজীপুর হেডকোয়ার্টারে মিলিত হয়েছে।

সাবেক মন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি এমপির সংসদীয় এলাকার রাস্তাটি হওয়ায় ব্যাপক আলোচনায় এসেছে বাইপাসের এই রাস্তাটিকে ঘিরে। নির্মাণ কাজের অগ্রগতি দেখতে মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপি, মেহের আফরোজ চুমকি এমপি ও গাজীপুর সিটি মেয়র জাহাঙ্গীর আলম একযোগে পরিদর্শনে আসেন বনমালা হায়দ্রাবাদ ব্রিজ এলাকায়।

এক দেড় বছরে যে রাস্তাটি নির্মাণ সম্ভব ছিলনা তা তিন মাসের মাথায় শেষ করে যানচলাচলে উম্মুক্ত করে দেওয়ায় হাজরো মানুষ মাঝে আশা জাগিয়েছে। উল্লেখ্য করা যেতে পারে, সড়কটি সরু এবং রেললাইন লাগোয়া ছিল।

সম্প্রতি টঙ্গী-জয়দেবপুর রেললাইনের দ্বিতীয় লেন নির্মাণের সময় রেল কর্তৃপক্ষ আগের রাস্তাটি তাদের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে যায়। ফলে হাজার হাজার মানুষ গাড়ি-ঘোড়া নিয়ে টঙ্গী থেকে হায়দ্রাবাদ-গাজীপুর হেডকোয়ার্টারে যাতায়াতে চরম দুর্ভোগে পড়েন। হায়দ্রাবাদ ব্রীজ থেকে বনমালা রেললাইন পর্যন্ত প্রায় ১ কিলোমিটারের রাস্তাটির পুরো অস্তিত্বই বিলীন হয়ে যায় নয়া রেল লাইন ও তাদের বাউন্ডারি ওয়াল নির্মাণে সব জায়গা দখলে নিয়ে নেয়ায়। বিপাকে পড়েন এ সড়ক দিয়ে চলাচলকারী ৮ থানার প্রায় ২০ লাখ মানুষ।

টঙ্গী-বনমালা-জয়দেবপুর হেডকোয়ার্টারের সঙ্গে মিলিত হওয়া সড়কটির এমন বেহাল দশায় এলাকাবাসী গাজীপুর সিটি মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের দৃষ্টি আকর্ষণ করালে মেয়র জাহাঙ্গীর আলম ১০ কিলোমিটারের রাস্তাটি ৫০ ফিট চওড়া করে নির্মাণ কাজ শুরু করেন। ৩ মাসের মধ্যে রাস্তাটি শতভাগ নির্মাণ করে যান চলাচলের জন্য খুলে দিয়েছেন মেয়র জাহাঙ্গীর আলম। এই বিকল্প সড়কে ঢাকা গাজীপুরে যাতায়াতকারী যানবাহনগুলো যানজট এড়িয়ে দেড়-দুই ঘন্টার পথ মাত্র ১৫ মিনিটে পাড়ি দিতে পারবেন গাজীপুর হেডকোয়ার্টার এবং টঙ্গীতে। 

জাহাঙ্গীর আলম আরো বলেন, ঢাকা টঙ্গী গাজীপুর মহাসড়কের বিকল্প বাইপাসের এই সড়কটি গাজীপুর হেডকোয়ার্টার হয়ে রাজেন্দ্রপুর ক্যান্টনমেন্ট পর্যন্ত নিয়ে যাওয়া হবে। রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ তাদের পুরো জায়গা তাদের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নেয়ায় রেললাইন সংলগ্ন মালিকানা জমি ও ঘরবাড়ির উপর দিয়ে রাস্তাটি নেওয়ার প্রয়োজন হয়ে পড়ে। বনমালা রেলগেটের আশপাশের বেশ কিছু জমি ও ঘর-বাড়ি মালিকদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার আশ্বাস এবং তাৎক্ষণিক পরিশোধ করায় জমি ও বাড়ি মালিকরা রাস্তার জন্য জমি ও ঘরবাড়ির দখল ছেড়ে দেন। রাস্তার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রাস্তায় ক্ষতিগ্রস্ত জমি এবং বাড়ি মালিকদের ফুল দিয়ে মেয়র জাহাঙ্গীর আলম এবং এলাকাবাসী বরণ করে নেন।

মেয়র বলেন, নতুন রাস্তাটি নির্মাণের ফলে যানবাহন চালক এবং যাত্রীরা ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের টঙ্গী চেরাগআলী কলেজ গেট থেকে চান্দনা চৌরাস্তা পর্যন্ত প্রায় ১০ কিলোমিটার যানজট এড়িয়ে খুব সহজেই গাজীপুর হেডকোয়ার্টার এবং টঙ্গীতে আসা যাওয়া করতে পারবে।  

একে


সর্বশেষ সংবাদ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি : গোলাম মোস্তফা || সম্পাদক : ফারুক আহমেদ তালুকদার
সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : হাউস নং ৩৯ (৫ম তলা), রোড নং ১৭/এ, ব্লক: ই, বনানী, ঢাকা-১২১৩।
ফোন: +৮৮-০২-৪৮৮১১৮৩১-৪, বিজ্ঞাপন : ০১৭০৯৯৯৭৪৯৯, সার্কুলেশন : ০১৭০৯৯৯৭৪৯৮
ই-মেইল : বার্তা বিভাগ- [email protected] বিজ্ঞাপন- [email protected]
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক আজকালের খবর
Web : www.ajkalerkhobor.net, www.ajkalerkhobor.com